স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের ম্যানেজার শায়লা সাত্তারের যৌন সেক্স কেলেংকারি – Basic News Bangladesh
Breaking News
Home / National / স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের ম্যানেজার শায়লা সাত্তারের যৌন সেক্স কেলেংকারি

স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের ম্যানেজার শায়লা সাত্তারের যৌন সেক্স কেলেংকারি

দেশের অন্যতম বেসরকারি ব্যাংক স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিমিটডের শাখা ম্যানেজারের যৌন কেলেংকারি ফাঁস হয়েছে। ব্যাংকের নাম ভাঙিয়ে যৌন ব্যবসায় নেমেছেন ব্যাংকটির শ্যামলী রিং রোড শাখার ব্যবস্থাপক শায়লা সাত্তার (লিজা)।
rono-2

একাধিক পুরুষের সঙ্গে নিয়মিত দৈহিক সম্পর্ক গড়ে তুলে প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নিচ্ছেন নগদ টাকা ও অন্যান্য সুবিধাগুলো। সম্প্রতি শাখা ব্যবস্থাপক হিসেবে যোগদান দিয়েছেন বটে। কিন্তু নিজের আখের গোছাতে তিনি ব্যাংকের সম্মান বিকিয়ে দিচ্ছেন খুব সহজ ও লোভনীয় পন্থায়। যা তার পুরোনো অভ্যাস ও জীবনাচরণ। যা তা বিবাহ বিচ্ছেদের মূল কারণ।

এই কারণে চল্লিশের পেরিয়ে তার ২য় স্বামীর সঙ্গে তালাক হয়ে যায় বেশ কিছু বছর আগে। বেপোরোয়া জীবনাচার ও অবৈধ যৌনাচারের কারণে ২য় স্বামী মামুনও একাধিকবার চেষ্টা করেও এ পথ থেকে তাকে ফেরাতে ব্যর্থ হয়েছেন। এমনকি ব্যাংকের গ্রাহকদের কাছ থেকে বহু অনৈতিক সুবিধাও নিয়েছেন শারীরিক সম্পর্কের মাধ্যমে। যা একটি প্রতিষ্ঠিত ব্যাংক কিংবা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের জন্য চরম অপমানকজনক ও লজ্জাকর।
আক্ষেপের সঙ্গে শায়লার ২য় স্বামী মামুন বলেন, শায়লাকে আমি অনেকবার বুঝাতে চেষ্টা করেছি, কিন্তু সে সঠিক পথে ফিরে আসেনি, অনেক বুঝানোর পরেও সামাজিকভাবে আমাকে শায়লা হেয় প্রতিপন্ন করতে দ্বিধা করেনি। যার কারণে ২টি ছেলে সন্তান থাকা স্বত্ত্বেও আমাদের মধ্যে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়েছে। যার মূল কারণ ছিল তার এই উচ্ছৃঙ্খল যৌনাচার।
উল্রেখ‌্য, শায়লার দু’টি উঠতি বয়সী ছেলে সন্তান রয়েছে যারা মায়ের এমন অনাচার মেনে নিতে বাধ্য হচ্ছে।বড় সন্তানটি বাবার কাছে ফিরে যেতে চাইলেও তাকে যেতে বাধা দিচ্ছে শায়লা। কারণ শায়লার ২য় স্বামী শারিরীক ও অর্থনৈতিকভাবে অক্ষম।

সাবেক স্বামীর দীর্ঘকালীন শারিরীক অক্ষমতার (পক্ষঘাত) সুযোগে পরিবারকেও খুব করে ঠকিয়ে নিজের স্বার্থ সিদ্ধিতে ব্যস্ত শায়লা এবং উচ্চাবিলাসী জীবনযাপনে নিজেকে মগ্ন রেখেছেন তিনি। যদিও সব কিছুর মুলে তার এই ব্যাংকের চাকরি ও পদবীটিকে অপব্যবহার করছেন তিনি।
উল্লেখ্য, তিনি চরমভাবে মাদকাসক্ত এবং বিভিন্ন রাতের পার্টিতে হোটেল এবং গেস্ট হাউজে টাকার বিনিময়ে রাত্রি যাপন করেন।
এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ব্যাংকের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। একজন ঊর্ধ্বতন ব্যাংক কর্মকর্তা কোনভাবেই এ ধরণের অনৈতিক ও অসামাজিক কর্মকান্ডে জড়িত থাকতে পারেন না। উল্লেখ্য স্ট্যার্ন্ডাড ব্যাংক লিমিটেড দেশের একটি স্বনামধন্য ব্যাংক। দু’একজন এমন অসৎ এবং দুশ্চরিত্রের কর্মকর্তার জন্য ব্যাংকের সুনাম নষ্ট হোক সেটা মানা সম্ভব নয়।
এ ব্যাপারে শায়লা সাত্তার লিজার মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করার পরও তিনি ফোন ধরেননি।

Check Also

rape

‘দশ বছরে ৩০ বার ধর্ষণ আর ৮ বার বিক্রি করা হয় আমাকে’

১০ বছরে বিক্রি হয়েছি মোট ৮ বার। কমপক্ষে ৩০ বার ধর্ষণের শিকার হতে হয়েছে, শুধু …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *